শরীরচর্চা করার উপকারিতা

শরীরচর্চা করার উপকারিতা: সুস্থ থাকতে কেবল স্বাস্থ্যকর খাবার নয়। প্রয়োজন রয়েছে নিয়মিত শরীরচর্চার। নিয়মিত ব্যায়াম ও শরীরচর্চা প্রতিরোধ করে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, ক্যান্সার ইত্যাদির মতো নানাবিধ জটিল রোগব্যাধি।

শরীরচর্চা করার উপকারিতা:

রোগ প্রতিরোধ করে:

গবেষণায় দেখা গিয়েছে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করতে নিয়মিত ব্যায়াম সহায়ক ভুমিকা পালন করে।

এমনকি মানুষের মৃত্যুর হার কমিয়ে এনে দেয় অর্থাৎ দীর্ঘদিন সুস্থ দেহে বেঁচে থাকার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়।

আরো পড়ুন: সকালে হাঁটার উপকারিতা

ক্যান্সার প্রতিরোধ:

২৭টি কেইস সরাসরি পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা দেখেছেন যে বিভিন্ন ক্যান্সার যেমন- স্তন, কোলন ইত্যাদির ঝুঁকির পরিমাণ কমে যায় যদি কেউ নিয়মিত শরীরচর্চা করে থাকে।

ওজন নিয়ন্ত্রণ করে:

সুস্থ থাকার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হল শরীরের বাড়তি ওজন ও মেদ ঝরিয়ে ফেলা। কিন্তু বাড়তি ওজন কমাতে ব্যায়ামের কোন বিকল্প নেই।

শারীরিক চর্চা করলে ক্যালোরি খরচ হয়। এভাবে আমরা যতই ব্যায়াম করবো ততই আমাদের ক্যালোরি খরচ হবে এবং যার ফলে শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

মস্তিষ্কের দক্ষতা বৃদ্ধি:

দৈনিক ৩০ মিনিট এরোবিক (Aerobic) ব্যায়াম ( দৌড়ানো, জগিং, সাঁতার, সাইক্লিং ইত্যাদি) করলে মানুষের মস্তিষ্কের উল্লেখযোগ্য হারে উন্নতি ঘটে।

আরো পড়ুন: মেয়েদের ওজন কমানোর ডায়েট চার্ট

বিষন্নতা দূর করে:

গবেষণায় বলা হয়েছে, ব্যায়াম বা যোগ-ব্যায়াম মানুষের জন্য এন্টি-ডিপ্রেশন হিসেবে কাজ করে। ২০১৫ সালের এই গবেষণায় এর প্রমান পেয়েছি এবং এই গবেষণায় কিছু গাইডলাইন ও দেয়া হয় ব্যায়ামকে এন্টি-ডিপ্রেশন হিসেবে কাজে লাগানোর জন্য।

শরীরকে করে শক্তিশালী

মাংসপেশীর গাঁথুনি যার যত ভালো, সে ততো বেশি শক্তিশালী। ব্যায়াম প্রতিটি পেশীকে আলাদা আলাদা ভাবে গড়ে তোলে।

পুরো ব্যাপারটা দাঁড়াচ্ছে আপনার উপর। কারণ আপনি ঠিক যেভাবে আপানার পেশীকে শক্তিশালী করতে চান, সেভাবেই করতে পারবেন।

সুনিদ্রা বাড়ায়:

আপনি কি ঘুমের জন্য সংগ্রাম করছেন অথবা নিদ্রাবিহীন রাত যাপন করে চলেছেন? তাহলে প্রতিদিন সকাল কিংবা বিকেলে পরিমিত ব্যায়াম হতে পারে সুনিদ্রা আনয়নের বড় দাওয়াই।

পরিমিত ব্যায়ামের ফলে শুলেই আপনার দুচোখজুড়ে ভর করবে রাজ্যের ঘুম। সেইসঙ্গে বেড়ে যাবে আপনার ঘুমের গাঢ়তা।

আরো পড়ুন: চুল ঘন করার উপায়

যদিও বিছানায় যাওয়ার ঘণ্টা দুই আগে অতিরিক্ত ব্যায়াম সুনিদ্রা আনয়নে সহায়ক নয়।

তাই আপনি যদি নিদ্রাহীনতায় ভুগে থাকেন তবে প্রাত্যহিক সকালে কিংবা বিকেলে পরিমিত ব্যায়ামের কোনো বিকল্প নেই।

আর একটি রাতের সুনিদ্রা বহুগুণে বাড়িয়ে দেবে আপনার কাজের একাগ্রতা ও উৎপাদনশীলতা। দেহে ও মনে জেগে উঠবে আনন্দের ভাব।

এই ছিলো শরীরচর্চা করার উপকারিতা ভালো লাগলে ,অবশ্যই লাইক কমেন্ট এবং শেয়ার করবেন।

Photo Credit: Pixabay

সূত্র : অনলাইন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *