রান্নাঘরের বিভিন্ন টিপস

দিনের প্রায় সময় আমাদের কাটাতে হয় রান্নাঘরে।আমাদের নিত্যকার একটা প্রয়োজনীয় জায়গা বললেই চলে রান্নাঘরকে।রান্নাঘরে অনেক সমস্যা হয় আমাদের।।তাই আজ আমরা আলোচনা করব,রান্নাঘরে বিভিন্ন টিপস নিয়ে।যা আমাদের অনেক সমস্যা থেকে রেহাই দিবে।

চলুন জেনে নিই তাহলে, রান্নাঘরের বিভিন্ন টিপস।

বাদামের খোসা ছাড়ানোর উপায়ঃ

যদি কাজুবাদামের খোসা ছাড়াতে কষ্ট হয়, তাহলে বাদামগুলোকে গরম পানিতে অন্তত ১৫-২০ মিনিট ডুবিয়ে রাখুন। খোসা নরম হয়ে সহজেই উঠে আসবে।

পিঁপড়া থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায়ঃ

চিনির বয়ামে খুব বেশী পিঁপড়া? বয়াম এর মুখ খুলে চিনির উপর ৩-৪ টি লবঙ্গ রেখে দিন। পিঁপড়ে বাপ বাপ করে পালিয়ে যাবে।

বিস্কুট মচমচে রাখার উপায়ঃ

আপনি যদি বিস্কুটের বয়ামের নিচে এক টুকরো ব্লটিং পেপার রাখেন, তাহলে সেই বয়ামে রাখা বিস্কুট সহজে নষ্ট হবে না। বরং সেগুলো শুষ্ক ও মচমচে রাখতে পারবেন অনেক দিন ধরে।

আপেলে লালচে দাগ না হওয়ার উপায়ঃ

কাটা আপেলের উপর হালকা করে লেবুর রস লাগিয়ে দিন। আপেল লালচে হবে না। বরং ফ্রেশ দেখাবে অনেক দিন ধরে।

আরও পড়ুন, মুখের উজ্জ্বলতা ফেরাতে ব্যবহার করুন কয়েকটি ঘরোয়া টিপস!

পুড়ে গেলে জ্বলুনি কমার উপায়ঃ

যদি চামড়ায় কোথাও পুড়ে যায়, ঠান্ডা পানি ঢেলে দিন। এরপর পাকা কলা চ্যাপ্টা করে নিয়ে পোড়া স্থানে লাগিয়ে দিন। জ্বলুনি একদম কমে যাবে।

পোকার কামড়ের ব্যথা উপশমের উপায়ঃ

রান্নাঘরে পোকা কামড় দিতেই পারে। যদি হুলের যন্ত্রণা বেশি হয় তাহলে চুইংগাম চিবিয়ে তার সাথে ১ ড্রপ পানি মিশিয়ে হুল ফোটা স্থানে চেপে ধরুন।কয়েক মিনিটেই ব্যথা মিলিয়ে যাবে।

করলার স্বাদ বাড়ানোর উপায়ঃ

করলা মাঝখানে কেটে নিয়ে তার ভেতরে লবণ, ময়দা এবং দই এর মিশ্রণ ঢুকিয়ে আধা ঘন্টা রেখে দিন। এরপর কেটে রান্না করুন, স্বাদ বেড়ে যাবে দ্বিগুণ!

জিরা ফ্রেশ রাখার উপায়ঃ

জিরা ফ্রেশ রাখা খুবই সহজ।জিরাগুলোকে এলুমিনিয়াম ফয়েল পেপারে মুড়িয়ে নিশ্চিন্তে ফ্রিজের এক কোণায় রেখে দিন। এরপর ভুলে যান।যখন প্রয়োজন হবে, ফ্রেশ ফ্রেশ জিরা পাবেন।

আরও পড়ুন, ছোট্ট শিশুর ত্বকের যত্নে কয়েকটি টিপস

পাতিলের পোড়া দাগ দূর করার উপায়ঃ

পাতিলে যদি খাবারের পোড়া দাগ লেগে যায়, অনেক সময় ঘষেও তোলা যায় না।এই ক্ষেত্রে কী করবেন? রান্নাঘরে গিয়ে অল্প কিছু পেঁয়াজ কেটে নিন।এরপর খাবার পোড়া পাতিলে গরম পানি ঢেলে তাতে পেঁয়াজ কুচি রেখে ৫ মিনিট অপেক্ষা করুন।তারপর পরিষ্কার করুন। দেখবেন পোড়া দাগ উঠে গেছে।

ধনে পাতা এবং পুদিনা পাতা ফ্রেশ রাখার উপায়ঃ

যদি তাজা ধনে পাতা কিংবা পুদিনা পাতা না পাওয়া যায়, আপনি বাজারে এর রেডিমেড গুঁড়ো কিনতে পাবেন।আর এই গুঁড়োকে তাজা এবং ফ্রেশ রাখতে চাইলে মসলিন কাপড়ে মুড়িয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। অনেক দিন ফ্রেশ থাকবে।

তেলাপোকা থেকে দূর করার উপায়ঃ

রান্না ঘরের সিংকের নিচে এবং কোণাগুলোতে বোরিক পাউডার ছড়িয়ে দিন। তেলাপোকা রান্নাঘর তো বটেই, বাড়ি ছেড়ে পালাবে।

নারকেলের শাঁস তোলার উপায়ঃ

পাকা নারকেলের শাঁস তুলতে আধ ঘন্টা পানিতে চুবিয়ে রাখুন।এরপর দেখবেন সহজেই উঠে আসছে।

ডিম নষ্ট না হওয়ার উপায়ঃ

খুব পোক্ত হাত না হলে ডিম ভাঙতে গিয়ে বেশি চাপ পড়ে ডিমের খোসা ভেঙে গুঁড়ো হয়ে যাওয়াটা বিচিত্র নয়৷ এই পরিস্থিতিতে গোটা ডিমটা ফেলে না দিয়ে ভাঙা খোসার একটা বড়ো টুকরো হাতে নিন৷ এবার এই টুকরোটার সাহায্য নিয়ে খোসার ছোট ছোট ভাঙা অংশগুলো তুলে ফেলুন ডিমের গোলা থেকে৷ খোসার বড়ো টুকরোটা চুম্বকের মতো আকর্ষণ করে আনবে ছোট টুকরোগুলিকে৷ তাতে খুব বেশি ডিম নষ্ট হবে না৷

কলা বা আম পাকানোর টিপসঃ

বাজার থেকে কলা/ আম কিনে এনে দেখলেন যে সেগুলি তখনও পাকেনি৷ কী করবেন? একটা বড়োসড়ো কাগজের ঠোঙায় ফলগুলি মুড়ে রেখে দিন৷ তাড়াতাড়ি পেকে যাবে৷ আর কাটা ফলের গায়ে দাগ ধরা আটকাতে চাইলে সামান্য লেবুর রস মাখিয়ে রেখে দিন ফ্রিজে৷

আরও পড়ুন, মাথাব্যথা ও টেনশন দূর করার কয়েকটি ঘরোয়া টিপস

শক্ত মাখন গলানোর টিপসঃ

মাখন বের করে রাখতে ভুলে গিয়েছেন, কিন্তু এখনই ব্যবহার করতে হবে? শক্ত মাখনটা গ্রেট করে নিন৷ তার পর গরম টোস্টের উপর ছড়িয়ে দিলেই দেখবেন মাখন গলতে আরম্ভ করে দিয়েছে এবং বাটার নাইফ দিয়ে স্বচ্ছন্দে লাগানো যাচ্ছে৷

হাত থেকে আদা রসূনের গন্ধ দূর করার উপায়ঃ

হাত থেকে আদা-রসুন বা মাছের গন্ধ ছাড়তেই চাইছে না? লেবু বা বেকিং সোডা হাতের আঙুলে মাখিয়ে ঘষে ধুয়ে নিন৷ তাতেও গন্ধ থাকলে হাতটা একটা স্টেনলেস স্টিলের বাসনের গায়ে খানিকক্ষণ ঘষুন – হাতের গন্ধ বাসনটি টেনে নেবে

অন্যান্য টিপসঃ

১. লেটুস পাতার তাজা ভাব বজায় রাখার জন্য লেটুস পাতা ধোয়ার সময় পানিতে সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে নিন লেটুস পাতা তাজা থাকবে।

২. বাঁধাকপি ও ফুলকপির সতেজভাব বজায় রাখার জন্য রান্নার সময় এক চা-চামচ লেবুর রস মেশান। দেখবেন সবজির সুন্দর সাদা রঙ বজায় থাকবে।

আশা করি,রান্নাঘরে এই টিপস গুলো আপনাদের বাস্তব জীবনে অনেক কাজে লাগবে।এবং রান্নাঘরের বিভিন্ন টিপস গুলো জেনে আপনেরা অনেক সমস্যার সমধান করতে পারবেন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *