নক্ষত্র পতন কাকে বলে? সৌরজগতের গ্রহগুলোর চিত্রসহ বর্ণনা দাও?

নক্ষত্র পতন কাকে বলে? সৌরজগতের গ্রহগুলোর চিত্রসহ বর্ণনা দাও?

নক্ষত্র পতন কাকে বলে? সৌরজগতের গ্রহগুলোর চিত্রসহ বর্ণনা দাও?

নক্ষত্র পতন কাকে বলে?

রাতের মেঘমুক্ত আকাশে অনেক সময় মনে হয় যেন নক্ষত্র ছুটে যাচ্ছে বা কোনো নক্ষত্র যেন এইমাত্র খসে পড়ল। এই ঘটনাকে নক্ষত্র পতন বা তারাখসা বলে ।

সৌরজগতের গ্রহগুলোর চিত্রসহ বর্ণনা দাও?

#সূর্য এবং তার গ্রহ, উপগ্রহ ,‌‌গ্রহাণুপুঞ্জ অসংখ্য ধুমকেতু ও অগণিত উল্কা নিয়ে সৌরজগৎ গঠিত। নিচে সৌরজগতের গ্রহগুলোর চিত্রসহ বর্ণনা করা হলো :-

সূর্য:

সূর্য একটি নক্ষত্র । এর ব্যাস প্রায় ১৩ লক্ষ ৮৪ হাজার কিলোমিটার এবং ভর প্রায় ১.৯৯× ১০^১৩ কিলোগ্রাম। সৌরজগতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন জ্যোতিষ্ক হচ্ছে সূর্য।

পৃথিবী, অন্যান্য গ্রহ, উপগ্রহের তাপ ও আলোর মূল উৎস সূর্য। সম্পর্কে কেন্দ্র করে ঘুরছে আটটি গ্রহ বুধ, শুক্র, পৃথিবী, মঙ্গল, বৃহস্পতি, শনি, ইউরেনাস এবং নাপচুন ।

সূর্য না থাকলে পৃথিবী চির অন্ধকার থাকত এবং পৃথিবীতে জীবজগতে ও উদ্ভিদজগতের কিছুই বাঁচত না।

আরো পড়ুন: নবম শ্রেণীর সকল অ্যাসাইনমেন্ট 

বুধ:

ভূত সৌরজগতের ক্ষুদ্রতম এবং সূর্যের নিকটতম গ্রহ। সূর্য থেকে বুধের গড় দূরত্ব ৫.৮ কোটি কিলোমিটার এবং এর ব্যাস ৪৮৫০ কিলোমিটার।

সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করে আসতে বুধের সময় লাগে ৮৮ দিন । বুধের মাধ্যাকর্ষণ বল খুবই কম তাই এটি কোনো বায়ুমণ্ডল ধরে রাখতে পারেনা । বুধের উপরিতল একদম চাঁদের মতো।

ভূত্বক অসংখ্য গর্তে ভরা, এবড়ো- থেবড়ো। বুধের কোনো উপগ্রহ নেই।

শুক্স:

শুক্র একটি ঘন মেঘে ঢাকা। তাই এর উপরিভাগ থেকে সূর্যকে কখনই দেখা যায় । শুক্রের মেঘাচ্ছন্ন বায়ুমণ্ডল প্রধানত কার্বন-ডাই-অক্সাইডের তৈরি।

সূর্য থেকে শুক্র গ্রহের দূরত্ব ১০.৮ কোটি কিলোমিটার শুক্রের ব্যাস ১২১০৪ কিলোমিটার । সূর্যকে ঘুরে আসতে শুক্রের সময় লাগে ২২৫ দিন। শুক্রের কোনো উপগ্রহ নেই।

সকল গ্রহ এদের নিজ অক্ষের উপর পশ্চিম থেকে পূর্বে পাক খেলে ও একমাত্র শুক্র গ্রহ পূর্ব থেকে পশ্চিমে পাক খায়।

পৃথিবী:

পৃথিবী সূর্যের তৃতিয়া নিকটতম গ্রহ। সূর্য থেকে পৃথিবীর গড় দূরত্ব ১৫ কোটি কিলোমিটার । এর ব্যাস প্রায় ১২৬৬৭ কিলোমিটার ।

#পৃথিবী একবার সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে সময় নেয় ৩৬৫ দিন ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড। চাঁদ পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ সৌরজগতের গ্রহ।

সৌরজগতের গ্ৰহ গুলোর মধ্যে একমাত্র পৃথিবীতেই প্রাণের অস্তিত্ব আছে।

মঙ্গল:

মঙ্গল পৃথিবীর নিকটতম প্রতিবেশী। সূর্য থেকে এর গড় দূরত্ব ২২.৮ কোটি কিলোমিটার। এর ব্যাস ৬৭৮৭ কিলোমিটার ।

পৃথিবীর ব্যাসের প্রায় অর্ধেক সূর্যের চারদিকে একবার ঘুরে আসতে মঙ্গলের সময় লাগে ৬৮৭ দিন । মঙ্গল গ্ৰহের উপরিভাগে রয়েছে গিরিখাত ও আগ্নেয়গিরি।

মঙ্গলে ফোবাস ও ডিসোস নামে দুটি উপগ্রহ রয়েছে।

বৃহস্পতি:

বৃহস্পতি সৌরজগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ । এদের গ্ৰহরাজ বলে । এর ব্যাস ১৪২৮০০ কিলোমিটার । আয়তনে পৃথিবীর চেয়ে ১৩০০ গুণ বড় ।

এটি সূর্য থেকে প্রায় ৭৭.৮ কোটি কিলোমিটার দূরত্বে রয়েছে। তাই পৃথিবীর ২৭ ভাগের এক ভাগ তাপ পায়। বৃহস্পতির বায়ুমণ্ডল হাইড্রোজেন ও হিলিয়াম গ্যাস দিয়ে তৈরি ।

সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে বৃহস্পতির সময় লাগে ৪৩৩১দিন। পৃথিবীর উপগ্রহের সংখ্যা৬৭।

শনি:

শনি সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ। সূর্য থেকে এর দূরত্ব ১৪৩ কোটি কিলোমিটার । এটি গ্যাসের তৈরি বিশাল এক গোলক।এর ব্যাস ১২০০০০ কিলোমিটার।

শনির ভুত্বক বরফে ঢাকা । সূর্যের চারদিকে একবার ঘুরতে শনির সময় লাগে পৃথিবীর প্রায় ২৯.৫ বছরের সমান। শনি উজ্জ্বল বলয় দ্বারা বেষ্টিত এবং এর ৬২ টি উপগ্রহ আছে।

ইউরেনাস:

ইউরেনাস সৌরজগতের তৃতীয় বৃহত্তমগ্রহ। এ গ্ৰহটি সূর্য থেকে ২৮৭ কোটি কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ।সূর্যকে প্রদক্ষিণ করতে এ গ্ৰহের সময় লাগে ৮৪ বছর।

এ গ্রহের গড় ব্যাস ৪৯০০০ কিলোমিটার । শনির মতো ইউরেনাসের ও কয়েকটি বলয় আবিষ্কৃত হয়েছে , তবে শনির বলয়ের নিয়ে এ বলয়গুলো উজ্জ্বল নয়। এর উপগ্রহ সংখ্যা ২৭ টি।

নেপচুন:

সূর্য থেকে এর দূরত্ব প্রায় ৪৫০ কোটি কিলোমিটার । এখানে আলো ও তাপ খুব কম । এর ব্যাস ৪৮৪০০ কিলোমিটার।

এ গ্ৰহ আয়তনে প্রায় ৭২ টি পৃথিবীর সমান এবং ভর ১৭ টি পৃথিবীর ভরের সমান । এর বায়ুমন্ডলে বেশিরভাগই মিথেন ও অ্য ামোনিয়া গ্যাস। এর উপগ্রহ সংখ্যা ১৪ টি।

আরো পড়ুন: 

ঢাকা ও টোকিওর স্থানীয় সময়ের ব্যবধান ৩ ঘন্টা ১৭ মিনিট ১৬ সেকেন্ড। টোকিওর দ্রাঘিমা ১৩৯° ৪৫ পূর্ব হলে ঢাকার দ্রাঘিমা কত?

কৈ মাছের জন্য দ্রবীভূত অক্সিজেন প্রয়োজন কেন ব্যাখা কর?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *