তিসির উপকারিতা – Jana Joruri

তিসির উপকারিতা: প্রায় ৬ হাজার বছর ধরে তিসিবীজ বা ফ্ল্যাক্স সিড খাবার হিসেবে গ্রহণ করা হয়ে আসছে এবং এটিই সম্ভবত বিশ্বে চাষ করা সবচেয়ে পুরনো এবং প্রথম সুপার ফুড।

এই তিসিবীজের উপকারিতা হচ্ছে তা ভালো হজমে সাহায্য করে, ত্বক সুন্দর করে, কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, চিনি খাবার ইচ্ছাকে কমায়, হরমোনের ভারসাম্যতা রক্ষা করে, ওজন কমাতে সাহায্য করে, ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়ে। এছাড়াও এমন আরো অনেক উপকারিতা রয়েছে।

পুষ্টিগুণ :

 ১০০ গ্রাম তিসিতে আছে

৫৩৪ কিলোক্যালরি

১৮.২৯ গ্রাম আমিষ

২৭.৩ গ্রাম স্নেহ

২৮.৮৮ গ্রাম শর্করা

১.৬৪ মিলিগ্রাম থায়ামিন

০.১৬১ মিলিগ্রাম রাইবোফ্লাভিন

৩৯২ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম

৬৪২ মিলিগ্রাম ফসফরাস

৮১৩ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম

৪.৩৪ মিলিগ্রাম জিঙ্ক

০.১৭৪ মিলিগ্রাম ম্যাংগানিজ

৮গ্রাম খাদ্য আঁশ

৬ মাইক্রোগ্রাম ফলেট।

জেনে নিন তিসির উপকারিতা:-

  1. গ্যাস্ট্রিক ও আলসার দূর করে এবং অ্যাজমা থেকে রক্ষা করে।

2.  শরীরের দূষিত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে তিসি। খাদ্য হজমে সহায়তা করে এবং অতিরিক্ত মেদও দূর করে।

আরো পড়ুন: চিয়া সিড এর উপকারিতা

3.  তিসির মধ্যে থাকা এন্টি অক্সিডেন্ট যা ব্লাড ক্যান্সার, ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সক্ষম।

4.  যারা তামাক বা অন্য নেশায় আক্রান্ত  তাদের জন্য তিসি খুবই উপকারী। এটি নেশাজাতীয় দ্রব্য থেকে মুক্তি দিতে পারে। প্রতিদিন খাওয়ার পর অল্প পরিমাণ তিসি চাবালে দ্রুত নেশা থেকে মুক্তি পেতে পারেন ।

5.  যারা উচ্চ রক্তচাপের রোগী, তাদের খাদ্য তালিকায় তিসি রাখতে পারেন। প্রতিদিন দুই চামচ তিসির পাউডার এর জন্য যথেষ্ট। এর ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড ও এমাইনো এসিড বিপি কমাতে সহায়তা করে। এ ছাড়া এই বীজ দিয়ে চা করে খেলেও রক্তের প্রেসার স্বাভাবিক থাকবে।

6. তিসি আমাদের হৃৎপিণ্ডকে সবল রাখতে কাজ করে। হার্টের ব্লক এবং হার্টবিট স্বাভাবিক রাখতেও অনেক সাহায্য করে।

7.  গবেষণায় দেখা গেছে, তিসি আমাদের শরীরের এইচডিএল (ভালো কোলেস্টোরাল) বাড়ায় এবং খারাপ কোলেস্টোরালকে কমায়। অর্থাৎ এটি আমাদের কোলেস্টোরালকে নিয়ন্ত্রণ করে।

8.  যারা ডায়াবেটিসের রোগী তাদের ইনসুলিন নেওয়ার প্রয়োজন নেই, যদি এই তিসি সেবন করে থাকেন দৈনিক অন্তত ১৫ থেকে ২০ গ্রাম। আর যাদের ডায়াবেটিস নেই তারা যদি এটি গ্রহণ করেন তাদের ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি কম থাকবে।

আরো পড়ুন: মসুর ডালের উপকারিতা

9.  তিসি আমাদের হতাশা ও দুশ্চিন্তা দূর করে। মেজাজ ফুরফুরে রাখতেও সাহায্য করে।

10. এটি আমাদের শরীরের ক্যালসিয়াম লেভেল বাড়ায়। হাড় ও শরীরের জয়েন্টগুলো সুস্থ রাখে। ফলে বৃদ্ধ বয়সে হাড্ডিজনিত রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম।

11.  তিসির বীজ মেয়েদের মেনোপোজের সময় ব্যথা দূর করতেও অনেক উপকারী।

12.  তিসি মুখের বলিরেখা প্রতিরোধ করে, চুল পড়া রোধ করে, ত্বককে মসৃণ রাখে, ত্বক উজ্জ্বল রাখে, যৌবন ধরে রাখে।

এটি ব্রণ ও যে কোনো চামড়া জাতীয় রোগ প্রতিরোধ করে।

এটি মাথায় খুশকি হতে দেয় না এবং মাথার ত্বকের ময়েশ্চারাইজার ঠিক রাখে।

Photo Credit: pixabay.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *