জেনে নিন বাদাম খাওয়ার সঠিক নিয়ম! – Janajoruri

ভাল স্বাস্থ্যের জন্য কমবেশি বাদাম আমরা সবাই খেয়ে থাকি। কিন্তু বাদাম খাওয়ার সঠিক নিয়মটা আমরা অনেকেই জানিনা। সুস্বাস্থ্য রক্ষায় এবং ত্বকের যত্নে আমরা সাধারণত কাজু বাদাম এবং কাঠবাদাম খেয়ে থাকি।

বাদামকে বলা হয় ফাইটিক এসিডের ‘স্টোরহাউজ’। বাদামে থাকা ফাইটিক এসিড অতিরিক্ত পরিমাণে শরীরে প্রবেশ করলে হজমে ব্যাঘাত ঘটিয়ে স্বাস্থ্যের ক্ষতি করতে পারে। কিন্তু সঠিক পরিমাণে ফাইটিক এসিড গ্রহণে হাড়ের ক্ষয়রোধ হয়।

আরো পড়ুনঃশিশুদের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য সাহায্য করে এই খাবারগুলো

সুতরাং বাদাম সঠিকভাবে প্রস্তুত না করে খাওয়াাত উল্টো শরীরের আরও ক্ষতি হতে পারে। আজকে আমরা এই ভিডিওতে বাদাম খাওয়ার সঠিক নিয়ম শেয়ার করব।

স্বাদ ছাড়াও বাদামের পুষ্টিগুণ অনেক । এতে আছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন, শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যকর ফ্যাট এবং ফাইবার। এই বাদামের পুষ্টিগুণ শরীরের ত্বককে রাখে টানটান এবং কোমল।

আমরা বেশিরভাগ মানুষই পানিতে ভিজিয়ে কাঁচা বাদাম এবং তেলে ভাঁজা বাদাম খেয়ে থাকি। কিন্তু এটা সঠিক উপায় নয়।

আসুন জানি নিয়মিত বাদাম গ্রহণের আগে বাদাম কিভাবে প্রস্তুত করব-

১টি বড় বাটিতে ২ কাপ বাদাম নিন। খাবার পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। এমনভাবে পানি দিন যেন বাদামের ২ ইঞ্চি উপর পর্যন্ত পানি থাকে। এবার ২ চা চামচ সামিদ্রিক লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়ুন।

কাজু বাদামের ক্ষেত্রে ৩-৫ ঘন্টা পর পানি ছেঁকে ফেলুন এবং কাঠবাদামের ক্ষেত্রে ১২-১৪ ঘন্টা পর পানি ছাঁকুন।

লবণ দেয়া পানি ফেলে দিয়ে এবার খুব ভালভাবে খাবার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এরপর খুব ভালভাবে শুকিয়ে নিন। রোদে, আগুনের হালকা আঁচে অথবা কুকিং শীটে নিয়ে ওভেনেও শুকাতে পারেন। খেয়াল রাখতে হবে যেন পানির কোন ছিটেফোঁটাও না থাকে। নাহয় আপনি সংরক্ষণ করলেও বাদাম নষ্ট হয়ে যাবে।

এরপর ভালভাবে শুকনো বাদামগুলো ১টি এয়ার টাইট পাত্রে রেখে ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

এই প্রক্রিয়ায় বাদাম সরবরাহ করে নিয়মিত খেলে এতে ভাল পুষ্টিগুণ পাওয়া যায়। এবং এতে পুষ্টিগুণ অটুট থাকে অনেক দিন পর্যন্ত।

এই প্রক্রিয়ায় বাদাম তৈরি করলে এতে ফাইটিক এসিডও ভেঙ্গে যায় ফলে হজমে সমস্যা হয় না।

আরো পড়ুনঃ নকল ডিম বা প্লাস্টিকের ডিম চেনার সহজ উপায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *