একের মধ্যে দুই সাকিবের অভাব বোধ করছেন কোচ

হুট করেই আইসিসির নিষেধাজ্ঞায় পড়ায় সাকিব আল হাসানকে ছাড়াই ভারত সফরের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের ছক আঁকতে হচ্ছে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে।

তবে বাংলাদেশ কোচ স্বীকার করে নিয়েছেন, একের মধ্যে দুই সাকিবের অভাববোধ করছেন তিনি। নিষেধাজ্ঞার কারণে ভারত সফরে নেই দলের অন্যতম প্রাণভোমরা সাকিব আল হাসান। তাতে অনেক সমর্থকেরদের সঙ্গে মন ভেঙে গেছে সতীর্থ খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদেরও। হুট করেই আইসিসির নিষেধাজ্ঞায় পড়া এমন একজন ক্রিকেটারকে ছাড়াই ভারত সফরের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের ছক আঁকতে হচ্ছে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে।

তবে স্বভাবতই ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের আগ্রহের কেন্দ্রে ঘুরে ফিরে সেই সাকিব প্রসঙ্গ। আজ দিল্লিতে বাংলাদেশ কোচ স্বীকারও করে নিয়েছেন একের মধ্যে দুই সাকিবের অভাববোধের কথা। আজ দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন শেষে ভারতীয় সাংবাদিকের প্রশ্ন, কীভাবে সাকিব-শূন্যতা পূরণ করা যায়? ডমিঙ্গোর জবাব, ‘কঠিন কাজ।’ এরপর লম্বা ব্যাখ্যায় বললেন, ‘যে কেউই সাকিবের শূন্যতা অনুভব করবে। সে দুর্দান্ত একজন ক্রিকেটার।

অবশ্যই ওর না থাকা আমাদের জন্য বড় ক্ষতি। সাকিব তিনে ব্যাট করে। নতুন বলে বোলিং ওপেন করে। প্রথম বোলার পরিবর্তনের পর বল করে। প্রতি ম্যাচে ৪ ওভার বল করে। দলের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন সে। এখন আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি একজন ব্যাটসম্যান নেবেন নাকি একজন বোলার, কারণ একই সঙ্গে দুটি পরিবর্তন করা কঠিন কাজ। আর খুব বেশি ক্রিকেটারও নেই যারা দুটিতেই দক্ষ। দেখা যাবে আপনি হয়তো একদিক শক্তিশালী করবেন, আরেকদিকে শক্তি হারাবে।’ তবে সাকিব ছাড়া বাংলাদেশ যে একেবারেই জিততে পারে না তা মনে করারও কোনো কারণ নেই।

গত এশিয়া কাপের কথাই ধরুন। সাকিবকে ছাড়াই পাকিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে সে কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন সাকিবের সতীর্থ লিটন দাস। তবে সাকিবের অনুপস্থিতি দলের জন্য যে অনেক বড় ক্ষতি তা মেনে নিচ্ছেন লিটনও, ‘সাকিবের অনুপস্থিতি আমাদের জন্য অনেক বড় ক্ষতি।

তিনি বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়। এই সিরিজের আগে তাঁকে এভাবে হারানো আমাদের জন্য অবশ্যই বড় ধাক্কা। আমাদের এখন টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে মনোযোগী হতে হবে। তরুণেরা পারফর্ম করলে তা আমাদের জন্য ভালো হবে।’

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *