কিয়ারার পরামর্শক সালমান খান

0
0

বিনোদন ডেস্ক : বলিউডের অতি পরিচিত নাম কিয়ারা আদভানি। তবে নায়িকার পারিবারিক নাম আলিয়া। এই নামেই স্কুল-কলেজেও পরিচিত তিনি। বাবা-মায়ের দেয়া নামটি কেন বদলে ফেললেন ‘কবির সিং’-এর নায়িকা?

অনেকদিন ধরেই বলিউডে সাফল্য পাওয়ার ইচ্ছা ছিল আলিয়ার। ক্যারিয়ারের শুরুর দিক ২০১৩-১৪ সালের দিকে হবে। মডেলিং বা বিজ্ঞাপনের কাজ করছিলেন। তখন মহেশ ভাট কন্যা আলিয়া ভাট ভালোই পরিচিতি পেয়েছেন। প্রভাবশালী অভিনেতা কিয়ারাকে পরামর্শ দেন, ইন্ডাস্ট্রিতে যদি নাম করতে চাও তা হলে বদলাতে হবে নাম। একই জায়গায় দুই আলিয়া… মানাতে অসুবিধে হবে ভক্তদের।

তারপরই নিজের নাম পরিবর্তন করলেন কিয়ারা। প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অভিনীত ২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘আনজানা আনজানি’তে নায়িকার নাম ছিল কিয়ারা। নামটি ভালো লাগায় নিজের নাম কিয়ারা রেখে দেন তিনি। হয়ে গেলেন কিয়ারা আদভানি। যদিও নিজের মেয়ের নাম কিয়ারা রাখার ইচ্ছা ছিল তার। অথচ শেষ পর্যন্ত নিজেই হয়ে গেলেন কিয়ারা।

হাল সময়ের আলিয়ার সাফল্যের পর প্রশ্ন থেকে যায় নাম পরিবর্তনের এই আইডিয়া ছিল কার? তিনি আর কেউ নন, বলিউডের ভাইজান খ্যাত সালমান খান। তিনিই কিয়ারাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন নাম পরিবর্তনের।

এদিকে জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্ট-এ এখনও আলিয়া আদভানি রয়েছে। শিগগিরই সেই নামের সঙ্গে কিয়ারাও যুক্ত করবেন বলে জানান অভিনেত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here