ওটস রেসিপি – Jana Joruri

ওটস রেসিপি: স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিগুণে ভরপুর  ওটস । ওটস এমনি একটি সাস্থসম্মত   খাবার এতে রয়েছে প্রচুর ফাইভার যা ওজন কমাতে সাহায্যে করে।এই ফাইবার আমাদের শরীরে নানা উপকারে আসে। যারা ওজন কমাতে ও শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে চান তাদের জন্য প্রতিদিন সকালে এক বাটি ওটস নাশতা হিসেবে খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারে।

ওটসের উপকারিতা:


এক কাপ ওটস এ ১৪০ ক্যালরি, তাতে ২দশমিক ৫ গ্রাম ফ্যট, ২৫ গ্রাম কার্বো হাইড্রেট, আর ৫ গ্রাম প্রোটিন আছে। এর বীজের খোসা দিয়ে তৈরি হয় ঔষধ। ত্বকের সমস্যা , হৃদ রোগের ঝুঁকি হ্রাস, উচ্চ রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রন, ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি হ্রাস সহ নানাবিধ রোগের বিরুদ্ধে ওটস কার্যকর।

তাই দৈনিক খাদ্য তালিকায় একে রাখা যেতে পারে। ওটস আপনি অনেক ভাবেই খেতে পারেন, এমনকি বিভিন্ন রেসিপি তৈরির মাধ্যমেও।

চলুন ওটস রেসিপিরেসিপি দেখে নেওয়া যাক:

ওটস সবজি খিচুড়ি রান্নার রেসিপি:


উপকরণ:

  • ইনস্ট্যান্ট ওটস ১ কাপ
  • গরম পানি ১ কাপ
  • টমেটো কুচি, ক্যাপসিকাম, পেঁয়াজ কলি কুচি, গাজর,মটরশুঁটি বাঁধাকপি ইত্যাদি মিলিয়ে আধা কাপ (ইচ্ছামত যে কোন সবজি নিতে পারেন)
  • ধনে পাতা কুচি ইচ্ছা মত
  • ডিম দুটি
  • হলুদ গুঁড়ো ১/৪ চা চামচ
  • পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ কুচি খানিকটা
  • মরিচ গুঁড়ো ও লবণ স্বাদ মত
  • ধনে গুঁড়ো সামান্য
  • ভাজা জিরা গুঁড়ো সামান্য
  • তেল সামান্য
  • আডা ও রসুন বাটা মিলিয়ে ১/২ চা চামচ (না দিলেও চলবে)

প্রণালি:

  1. শুকনো প্যানে ওটসগুলোকে ৫ মিনিট ভেজে নিন। তারপর ঠাণ্ডা করে নিন।
  2. প্যানে অল্প তেল দিয়ে ডিমগুলো ঝুরি করে নিন। তারপর পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ দিয়ে ভাজুন।
  3. পেঁয়াজ একটু নরম হলে সবজিগুলো দিয়ে দিন। তারপর সব মশলা ও লবণ দিয়ে ভাজুন।
  4. ভালো করে ভাজা হলে ওটস গুলো দিয়ে দিন। ভালো করে মিশিয়ে পানি দিয়ে দিন।
  5. এবার ঢাকনা দিয়ে রান্না করুন পানি শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত। পানি শুকালে ভাজা ভাজা করে ধনে পাতা ছিটিয়ে নামিয়ে নিন।

আরো পড়ুন: চকলেট কেক রেসিপি

এই খাবারে যোগ করতে পারেন এক মুঠো বাদাম। যাদের ওজন নিয়ে সমস্যা নেই তারা দিতে পারেন ঘি। চাইলে ভেতরে ডিম না দিলে আলাদা ভেজেও খেতে পারেন। ১ কাপ ওটসে দুজনের জন্য চমৎকার নাস্তা হবে। ওটসে ক্যালোরি খুব কম, সকালে পরোটা-লুচি-মাখন-টোস্ট খাওয়ার চাইতে অনেক বেশি স্বাস্থ্যকরও বটে। এতে আছে হাই ফাইবার যা ওজন কমাতে সহায়ক ও ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে কার্যকরী।

চিকেন ওটস সুপ রেসিপি:


উপকরণ:

  • মাখন ১ টেবিলচামচ
  • গোল মরিচ গুঁড়ো
  • রসুন কুচি- ১ টেবিলচামচ
  • ওটস- ১কাপ
  • বনলেস চিকেন – ১/২কাপ
  • চিকেন স্টক -৩কাপ অথবা চিকেন স্টক কিউব ২ পিস ৩কাপ জলে মিশিয়ে নিন
  • ধনেপাতা কুচি
  • কাঁচা লঙ্কা কুচি
  • সুইট কর্ন , গাজর , মটর আপনার ইচ্ছামত সব্জি দিতে পারেন
  • নুন

প্রণালী:

  1. একটি  প্যানে মাখন  দিয়ে রসুন কুচি দিন।
  2. একটু ভাজা হলে চিকেন কুচি ও ওটস দিন ।
  3. সুইট কর্ন, গাজরকুচি বা  অন্য সব্জি কুচি করে কেটে  দিতে পারেন ।
  4. ৫ মিনিট ভেজে চিকেন স্টক ও ১/২ চা চামচ গোল মরিচগুঁড়ো দিয়ে  দিন।
  5. ৫ থেকে ১০ মিনিট মিডিয়াম আঁচে রান্না করুন।
  6. ভালো করে ফুটে উঠলে ধনেপাতা ও কাঁচা লঙ্কা কুচি দিয়ে   দিন।
  7. ১/২  মিনিট রান্না করে নামিয়ে নিন।তৈরি মজাদার  চিকেন ওটস সুপ ।
  8. গরম  গরম  পরিবেশন করুন মজাদার  চিকেন ওটস সুপ  

ওটস অমলেট রেসিপি:


উপকরণ:

  • ওটস- ৩ টেঃ চামচ
  • দুধ- ১ টেঃ চামচ
  • ডিম- ৪ টি
  • লবণ- স্বাদমতো
  • গোলমরিচের গুঁড়ো- সামান্য
  • পেঁয়াজ কুচি- ২ টেঃ চামচ
  • লঙ্কা কুচি- ১ টেঃ চামচ
  • ক্যাপসিকাম কুচি- ১ টেঃ চামচ
  • গাজর কুচি- ২ টেঃ চামচ
  • টমেটো কুচি- ২ টেঃ চামচ
  • ধনে পাতা- সামান্য
  • অলিভ অয়েল- পরিমাণমতো

প্রণালী :

  1. একটি পাত্রের মধ্যে তিন টেবিল চামচ ওটস নিন।
  2. এর মধ্যে এক টেবিল চামচ দুধ দিন। পাঁচ মিনিট এভাবে রাখুন।
  3. এবার আরেকটি পাত্রে চারটি ডিম ফেটিয়ে নিন।এর মধ্যে স্বাদমতো লবণ ও সামান্য গোল মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দিন।এর মধ্যে দুই টেবিল চামচ কাটা পেঁয়াজ দিন।

    এবার এক টেবিল চামচ লঙ্কা কুচি, এক টেবিল চামচ ক্যাপসিকাম, দুই টেবিল চামচ গাজর, দুই টেবিল চামচ টেমেটো কুচি, সামান্য ধনে পাতা নিন।

    এর মধ্যে দুধে ভেজানো ওটস নিয়ে ভালো করে উপাদানগুলো মেশান।

  4. এবার একটি প্যানের মধ্যে সামান্য অলিভ অয়েল দিন।
  5. তেল গরম হলে এলে ডিমের মিশ্রণটি এর মধ্যে ঢেলে দিয়ে ওপরে ঢাকনা দিয়ে দিন।
  6. সাত মিনিট এভাবে রান্না করুন। এবার এক পিঠ হয়ে গেলে উল্টে দিন।
  7. এক থেকে দুই মিনিট এভাবে রাখুন। তৈরি হয়ে গেলে ওটস অমলেট।

বাচ্চাদের জন্য ওটস রেসিপি:


উপকরণ:

  • ওটস গুড়া ১টেবিল চামচ
  •  পানি ১/২ কাপ
  • আপেল কুচি ১টি

প্রণালী :

  1.  প্রথমে পানি ফুটিয়ে নিতে হবে।
  2. এবার এতে ওটস গুড়া ও আপেল কুচি দিয়ে অল্প আঁচে সিদ্ধ করতে হবে।
  3. আপেল সিদ্ধ হয়ে গেলে চামচ দিয়ে ভাল করে ঘুটে মিশিয়ে দিতে হবে।
  4. খেয়াল রাখবেন যেন দানা না থাকে।
  5. আপনি যদি একেবারে ছোট বাচ্চার জন্য বানান তাহলে ব্লেন্ড করে নেয়া ভাল।
  6. এবার ঠান্ডা করে বাচ্চাকে খাওয়াতে পারেন মজাদার আপেল ওটস পিউরি।

আরো পড়ুন: জলপাই আচার তৈরির রেসিপি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *