অনলাইনে আয় করার সহজ উপায়

আমরা সবাই আমাদের নিয়মিত আয়ের পাশাপাশি একটু বাড়তি আয়ের চিন্তা করি. আবার যারা ছাত্র-ছাত্রী তাদেরও হাত খরচের দরকার হয়. আমরা সহজেই অনলাইনে বাড়িতে বসেই  খুবই কম সময় ব্যায় করে  এই বাড়তি আয় করতে পারি – আজকে আমরা আলোচনা করবো অনলাইন আয় করার উপায় নিয়ে   -আসুন   জেনেনিই কিভাবে এবং কোন কোন সাইট থেকে এই কাজ গুলো করতে পারি-

 

Facebook-ফেইসবুক হয়তো আমাদের অনেকের কাছেই একটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম-কিন্তু এটি দিয়া যদি আপনি আয় করতে পারেন তাহলে কেমন হবে- Affiliate বা Referral marketing Facebook-এর মাধ্যমেই বেশি হয়, তাছাড়া আপনার যেকোনো পণ্যের বিজ্ঞাপন আপনি এর মাধ্যমে দিতে পারেন. Facebook-এর Business page { Not your Profile Page}য আপনি আপনার ব্যাবসার প্রসার করতে পারেন. এছাড়া বিভিন্ন ফান পেজ বা ভিডিও দিয়েও আপনি ভালো আয় করতে পারেন

 

Youtube-বর্তমান বিশ্বে অনলাইন আয়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে এই Youtube. পন্যের প্রচার থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত ইমেজ  সেল সবকিছুই করা যায় . আপনি যেকোনো নিদ্দিষ্ট বিষয়ের উপর ভিডিও তৈরী করে তা আপনার ইউটুবে চ্যানেলে আপলোড করে দিলেই হলো-যতবেশি ভিউ তত টাকা. এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি প্রচলিত ট্রেন্ড হচ্ছে ফান ভিডিও, শিক্ষা মূলক প্রচার, সাম্প্রতিক ঘটনাবলি নিয়ে তৈরি ভিডিও  .  এই ক্ষেত্রে আপনার পুঁজি হচ্ছে শুধু সুন্দর উপস্থাপন.

 

Affiliate Marketing– Affiliate  মার্কেটিং হচ্ছে রেফারাল মার্কেটিং . অর্থাৎ আপনি কোনো পণ্য সম্পর্কে আপনার সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্য কোনো মিডিয়াতে  লিংক দিলেন এবং কেউ যদি সেই লিংক থেকে দেখে পণ্যটি কিনে তাহলে আপনি সেই পণ্যতে বিক্রির উপর একটা কমিশন পাবেন-আপনি চাইলে সহজেই এই কাজটি করতে পারেন. কোনো পণ্য সম্পর্কে আপনার মতামত দিয়ে আপনার ফেইসবুক, লিঙ্কেডিন , ইনস্টাগ্রাম টুইটার এ একটা পোস্ট দেন বাস হয়ে গেল.

 

Freelanceing-আপনার খেয়াল খুশি মতো কাজ করাই হচ্ছে Freelancing . তবে কাজ করে জন্য আপনাকে একটি নিদ্দিষ্ট  বিষয়ে পারদর্শী হতে হবে. অনেক গুলো Freelancing  সাইট আছে Freelancer.com/ //Fivver.com/  যেখানে আপনি লগইন করে আপনি যেই বিষয়ে পারদর্শী.  সেই সম্পর্কিত কাজ খুঁজতে পারেন. তবে এই জন্য আপনাকে অনেক ধৈর্য ধরতে হবে. এখান থেকেও আপনি প্রচুর ইনকাম করতে পারেন,

 

Blogging- One kind of Online Journal. ব্লগ হচ্ছে একটি তথ্য ভিত্তিক বা আলোচনা ভিত্তিক ওয়েবসাইট-যেখানে যেকোনো বিষয় নিয়েই আলোচনা করা হয়. এই ব্লগে লিখা লিখি করেও আপনি প্রচুর আয় করতে পারেন.  বর্তমান সময়ে অনলাইন আয়ের একটি খুবই জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে এই ব্লগিং. খুব সহজে একিট  Blog  খুলে আপনি কাজটি করতে পারেন এর নয়তো অন্যের ব্লগে  লিখেও আয়ে করতে পারবেন.

 

Vloging- Vlogging হচ্ছে মূলত Blogging এর ভিডিও ফরমেট. অর্থৎ ব্লগিং এ যেই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয় Vlogging  এ সেই বিষয় গুলো নিয়েই লাইভ আলোচনা করা হয় অথবা ভিডিও দেখানো হয়. যদিও আমাদের দেশে এটি এখনো তেমন পপুলার না তবে আপনি চাইলেই করতে পারেন আর এখান থেকে ইনকাম ও হয় প্রচুর.

 

Data Entry-কোনো একটি ফাইল বা ফর্ম অথবা ডাটা বেস এ নিদ্দিষ্ট  তত্থ বা ডাটা ইনপুট করাই হলো মূলত ডাটা এন্ট্রিয়ের কাজ.  বিভিন্ন উৎস থেকে ডাটা কালেক্ট করা বা টাইপিং করাও ডাটা এন্ট্রিয়ের কাজ. আপনার যদি ভালো টিপিংয়ের হাত থাকে আর যদি ইন্টারনেট থেকে ডাটা কলেক্টর অল্প পরিমাণও  দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি এখান থেকে খুব ভাল পরিমান আয় করতে পারেন.

 

Captcha Entry–  হচ্ছে মূলত ক্যাপস ইমেজ কে টেক্সট ফরম্যাটে এ রুপান্তর করা-কাজটি খুব সহজ . যে কেউ চাইলেই করতে পারে. কোনো দক্ষতার দরকার নাই.  তবে অনেকেই প্রশ্ন করেন ক্যাপস এন্ট্রি কি জেনুইন ওয়ার্ক   —Yes. 100 % Genuine  and Payment Process is Clear. এই কাজের কিছু সাইট এর নাম হলো  Mega typers, Pro typers, Captcha Work at kolotibablo, fast typers, 2Captcha, QlinkGroup, Captcha Typers,PixProfits.

 Mega Typersহচ্ছে এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেস্ট. প্রতি ১০০০ ইমেজ টাইপ এর জন্য আপনাকে ০.৪৫ থেকে ১.৫০ ডলার দিবে.

Online Survey-  অনলাইন জরিপ এক প্রকারের  অনলাইন  প্রশ্নপত্র যা  ইন্টারনেটের মাধ্যমে পূরণ করে। বাজার গবেষণা , পণ্য সম্পর্কে কাস্টমারের ধারণা  এই ধরণের তথ্যই বেশি জানতে চাওয়া হয়.  এই প্রশ্নগুলির এবং প্রয়োজনীয় বিবরণের উত্তর দেওয়ার পরে,  আপনাকে নগদ প্রদান করবে . সংক্ষিপ্ত জরিপগুলি সাধারণত আপনার  15 মিনিট সময় নেয়, যেখান থেকে আপনি $ 5 অবধি আয় করতে  পারবেন । মাঝারি স্তরের জরিপ যা 30 মিনিট পর্যন্ত সময় নিতে পারে সেখানে আপনি 15 ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারেন ।  দীর্ঘ সমীক্ষার জন্য আপনার ১ থেকে ২ ঘন্টা লাগতে পারে যেখানে আপনি সহজেই  ৭৫ থেকে ১০০ ডলার আয় করতে পারেন. ।

 

PTC  Sites- paid to Click Ads– বর্তমান সময়ের সবচেয়ে সহজ অনলাইন আয়ের উপায় হচ্ছে পিটিসি এড্স.  যেখানে আপনি শুধু বিজ্ঞাপন দেখবেন আর তার বিনময়ে আপনি পাবেন টাকা.  কোম্পানি গুলো বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছ থেকে ভালো এমাউন্ট নেয় এবং আপনাকে বিজ্ঞাপন দেখার জন্য সেখান থেকে একটা অংশ দিবে. Inbox Dollars- আপনাকে সরাসরি মেইল করবে আর আপনি সেই মেইল পড়লেই টাকা পাবেন.

 

Mobile Apps- আর একটি সহজ উপায় – শুদু আপনার Mobile- এ Apps ডাউনলোড করে ইনস্টল করে সারাক্ষণ চালু রাখলেই হলো. তবে এই ধরণের কাজে আয়ে একেবারেই সামান্য. হয়তো আপনার ইন্টারনেট খরচই উঠবেনা.

 

Playing Online Game- যারা গেম খেলতে ভালোবাসেন তাদের জন্য এটি খুবই আনন্দের. কিছু কিছু গেমিং এপপ্স আছে যেগুলোতে আপনি অনলাইন গেম খেলে একটা নিদ্দিষ্ট পয়েন্ট নিতে পারলেই পাবেন- গিফট কার্ড , ক্যাশ ভাউচার , ক্যাশ.

 

এগুলো ছাড়াও অনলাইন এ কাজের আরো অনেক উপায় আছে যেগুলো করে আপনি সহজেই বাড়তি কিছু আয়ে করতে পারেন.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *